Breaking News

এবার বুচ্ছেন তো আপনার যোগ্যতাটা কি?

জ্বি। এতদিন খুবই অখুশি ছিলেন। মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা কেন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কম বলেন! কেন উনি তথ্য লুকান!
এজন্য ওনার মত একজন উচ্চশিক্ষিত, রুচিশীল, পরিপাটি, গোছানো, ব্যক্তিত্ববান, যোগ্য নারীকেও ব্যক্তিগত আক্রমণ করতে ছাড়লেন না।
অবস্থা এমন হয়েছিল যে ওনার মুখ থেকে প্রতিদিন শত শত বা হাজার হাজার করোনা পজেটিভ না শুনতে পারলে আর ভাল লাগতেছিল না!
অসুবিধা নাই।
আজ উনি বেশি বলা শুরু করছেন। বেশি বলার এই সুযোগটা গত ১৪ দিন সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে আপনিই তৈরি করে দিয়েছেন। এবার খুশি হইছেন তো?
কি আশ্চর্য। আপনাদের মত এই হাবা সমালোচকরা এতটুকুও বুঝেলেন না যে, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমবেশী বলা নির্ভর করে মীরজাদীর উপর না এই সংখ্যা বাড়া-কমা নির্ভর করে আপনাদের মত হাবাদের উপর। হাবাদের আচরণের উপর। হাবাদের ঘরে থাকা না থাকার উপর।
আর হ্যাঁ সব দোষ সরকারের। আমেরিকার সরকারের, ইতালির সরকারের, শেখ হাসিনার সরকারের। সারা দুনিয়ার সব সরকারের।
খালি আপনাদের কোন দোষ নেই।
হাতে-পায়ে ধরেও আপনাদেরকে তারা ১৪ টি দিন ঘরে রাখতে পারেনি। পুলিশ, আর্মি নামিয়েও কোন লাভ হয়নি।
আচ্ছা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক যুগের বেশী সময় ধরে বাংলাদেশ নামক ঘরটা সামাল দিচ্ছেন। আর আপনাকে মাত্র ১৪ দিনের জন্য আপনার ঘরটা সামাল দিতে বলা হয়েছিল, নিজেকে সামাল দিতে বলা হয়েছিল।
আপনি বনিআদম তা পারেন নাই।
এবার বুচ্ছেন তো আপনার যোগ্যতাটা কি? বুঝব্যবস্থা কি?
আরো বুচ্ছেনতো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেমনে আপনাদের মত হাবাদের নিয়ে দেশটা চালাচ্ছেন!
অথচ করোনা ইস্যুতে আপনি যদি কেবলমাত্র ১৪ টি দিন নিজের ঘরটা সামাল দিতেন, নিজেকে সামাল দিতেন তাহলে আজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশটা সামাল দেয়া লাগত না ।
এই ১৪ দিন কথা না শোনার ফলে যে পরিস্থিতি তৈরি হতে যাচ্ছে এর দায় এখন কে নেবে?
আপনি না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা?
কার সমালোচনা করবেন? নিজের? নাকি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার?
আর আপনি কি আদৌ সমালোচনার যোগ্যতা রাখেন?
বৃটিশ সমালোচক কেনেথ টাইন্যানের একটা কথা আছে, সমালোচক হচ্ছেন তাঁরা, যাঁরা পথ চেনেন।
আপনি তো নিজের পথই চিনেন না তা সরকারকে পথ দ্যাখান কি করে!
ফজলুল হালিম রানা
সহযোগী অধ্যাপক, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

No comments