Breaking News

সরকারি নির্দেশ মানছে না কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনা ঝুঁকিতে পীরগঞ্জবাসী!

রংপুরের পীরগঞ্জে অধিকাংশ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী বিশেষ করে সিংহভাগ ডাক্তারই সরকারি নির্দেশণা মানছে না। স্ব-স্ব কর্মস্থলে ছুটিকালীন সময়ে অবস্থান করার নির্দেশ উপেক্ষা করে করোনা উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে অফিস করছে। ফলে তাদের দায়িত্¦হীনতার কারণে পীরগঞ্জবাসী করোনা ঝুঁকির আশংকা করছে। সরেজমিন জানা যায়,উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত সিংহভাগ কর্মকর্তা,বিশেষ করে পিআইও,কৃষি অফিসার,প্রাণীসম্পদ অফিসারসহ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তারাই সরকারি নির্দেশ মানছে না। এদের অনেকেই পার্শ্ববর্তী ঝুকিপূর্ণ গাইবান্ধা জেলা ও রংপুর থেকে যাতায়াত করে। তারা মানছে না সামাজিক দূরত্ব বিধি। অন্যদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত ডাক্তারদের বড় একটি অংশই থাকে না কর্মস্থলে। প্রতিদিন রংপুর থেকে ৭ থেকে ৮ জন ডাক্তার একটি মাইক্রোতে যাতায়াত করে। স্বয়ং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রুহুল আমিন বুলেটও সপ্তাহের ছয় দিনেই রংপুর থেকে যাতায়াত করেন। এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্ত¡রে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার থাকার ব্যবস্থাসহ ১০ থেকে ১৫ জন ডাক্তার(জরুরি অবস্থায় পরিবার পরিজন ছাড়া।) থাকার ব্যবস্থা আছে। করোনা আতংক ছড়িয়ে পড়ায় এবং রংপুর ও পীরগঞ্জের সীমান্তবর্তী গাইবান্ধা জেলার সাদুল্ল্যাহপুর উপজেলায় করোনা আক্রান্ত রোগি সনাক্ত হওয়ায় পীরগঞ্জের মানুষ ব্যাপক আংতকের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। সচেতন এলাকাবাসী মনে করছে যে সব ডাক্তার এবং কর্মকর্তা কর্মচারী সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে পীরগঞ্জে যাতায়াত করছে তাদের কারণে করোনা ঝুঁকি আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিষয়ে কথা বললে জেলা প্রশাসক আসিব আহসান এ বিষয়ে সরকারি কঠোর নির্দেশনার কথা স্বীকার করে এই প্রতিনিধি কে ইউএনও এর সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। ইউএনও টিএমএ মমিন এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে চাননি। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রুহুল আমিন বুলেট বলেন,কিছু কিছু ডাক্তার কর্মস্থলে থাকলেও অধিকাংশই কর্মস্থলে থাকেন না। এ বিষয়ে রংপুরের সিভিল সার্জন হিরম্ব কুমার বলেন,লক্ষ্য করুন স্বাস্থ্য সেবা ব্যহত হচ্ছে কিনা। ডাক্তাররা বাহির থেকে যাতায়াত করায় করোনা ঝুঁকি বাড়ছে কিনা এমন প্রশ্ন পাশ কাটিয়ে তিনি বলেন,ডাক্তারদের স্থানীয়ভাবে থাকার ব্যবস্থা নাই-তারা থাকবে কোথায়।

No comments