Breaking News

ঝুঁকি নিয়েই কাজ করছেন রংপুরের ৭৬ ইউডিসি উদ্যোক্তা

প্রায় এক দশক পেরিয়ে গেছে। কোনো প্রকার বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। অথচ তৃণমূল পর্যায়ে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নসহ সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় তথ্য-প্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দিতে নিরলসভাবে কাজ করছেন রংপুরের ৭৬টি ইউনিয়নে নিয়োজিত ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের (ইউডিসি) উদ্যক্তারা। করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তারা কাজ করে যাচ্ছেন। কর্মহীন ও অসহায় মানুষদের খাদ্য সহায়তা দিতে সরকারে নানা কর্মসূচি বাস্তবায়নে ইউডিসি উদ্যোক্তারা জনপ্রতিনিধি ও জনপ্রশাসনকে সহায়তা করছেন। সরকারিভাবে সারা দেশে সাধারণ ছুটি থাকলেও ইউডিসি উদ্যক্তারা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন আগের নিয়মেই। করোনা আতঙ্কের মধ্যে কর্মহীন, অসহায় মানুষের তালিকা তৈরি, মাস্টার রোল তৈরি, জনসচেতনা সৃষ্টি, তথ্য আদান-প্রদান, প্রচার-প্রচারণাসহ সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করছেন তারা। এ সব করছেন ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী ছাড়াই। ডিজিটাল সেন্টার রংপুর জেলা উদ্যোক্তা ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক রাজু মন্ডল জানান, কোনো প্রকার বেতন-ভাতা না থাকলেও ২০১০ সাল থেকে রংপুর জেলায় ১৫২ জন ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার উদ্যোক্তা মানুষের দোরগোড়ায় তথ্য-প্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দিচ্ছে। করোনা প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি।
ডিজিটাল সেন্টার রংপুর জেলা উদ্যোক্তা ফোরাম এর সভাপতি আরিফুজ্জামান মুন জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৪ সালে ইউডিসি উদ্যোক্তাদের ডিজিটাল সন্তান হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে ব্যক্তিগত সুরক্ষাসামগ্রী, আর্থিক প্রণোদনাসহ ইউডিসি উদ্যোক্তাদের ন্যায্য দাবি বাস্তবায়নের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন।

No comments