Breaking News

১ সেপ্টেম্বর থেকে খুলছে আগ্রার সব দর্শনীয় স্থান, তবে বাদ তাজ মহল-আগ্রা ফোর্ট

১ সেপ্টেম্বর থেকে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে আগ্রার সব ঐতিহাসিক স্থান। তবে এখনও বন্ধ থাকবে তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্ট। সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পর্যটক আগ্রার এই দুটি ঐতিহাসিক স্থান দেখতেই ভিড় করেন। ভিড় এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
পর্যটকদের জন্য সুখবর। আগামী মাসের ১ তারিখ থেকেই খুলে যাচ্ছে আগ্রার সব ঐতিহাসিক স্থান। তবে এই তালিকার বাইরেই থাকবে তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্ট। সম্প্রতি এই কথা ঘোষণা করেছে আগ্রার জেলা প্রশাসন। 
করোনা অতিমারীর কারণে মার্চ মাস থেকে গোটা দেশের মতোই বন্ধ আগ্রার যাবতীয় দর্শনীয় স্থান। তবে এবার আনলক পর্যায়ে ধাপে ধাপে অনেক জায়গাই পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে। সেই তালিকাতেই ঢুকতে চলেছে আগ্রা। তবে পর্যটকরা আগ্রায় সবচেয়ে বেশি যার টানে যান, নিঃসন্দেহে তা হল বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম তাজ মহল। গোটা বিশ্ব থেকেই এখানে পর্যটকের ঢল যেন উপচে পড়ে। আগ্রার অন্যান্য ঐতিহাসিক স্থান ১ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে দেওয়া হলেও এখনও বন্ধ থাকবে তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্ট। 
আগ্রার যাবতীয় দর্শনীয় স্থানের মধ্যে তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্টেই পর্যটকের ভিড় সবচেয়ে বেশি হয়। করোনা আবহে ভিড় এড়াতে তাই এখনও কিছুদিন তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্ট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগেই কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছিল যে জুলাই মাস থেকে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার তত্ত্বাবধানে থাকা সংরক্ষিত সৌধ প্রয়োজনীয় সুরক্ষা বিধি মেনে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া যাবে। তবে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার চূডা়ন্ত ক্ষমতা স্থানীয় প্রশাসনের হাতেই দেওয়া হয়।
সম্প্রতি আগ্রার জেলাশাসক ঘোষণা করেছেন যে তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্ট বাদে সেখানকার অন্যান্য ঐতিহাসিক স্থানগুলি পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে। তবে যেগুলি খোলা হচ্ছে, সেগুলিও ভিড় এড়াতে শনি ও রবিবারে বন্ধ থাকবে। এছাড়া পর্যটক ও কর্মীদের সামাজিক দূরত্ব পালন এবং মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক।
যে ঐতিহাসিক স্থানগুলি খুলে দেওয়া হবে, তার মধ্যে রয়েছে - মুঘল গার্ডেনস, যেমন আরম বাগ এবং মেহতাব বাগ। এখান থেকে তাজ মহলের শোভা উপভোগ করা যাবে। এছাড়া ১ সেপ্টেম্বর থেকে খুলে যাচ্ছে টুম্ব অফ মারিয়াম-উজ-জামানি, ঐতিহাসিক শহর ফতেহপুর-সিক্রি, চিন্নি কা রৌজা এবং সিকান্দ্রা। তাজ মহল এবং আগ্রা ফোর্ট কবে নাগাদ পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হতে পারে, সেই বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি আগ্রার জেলা প্রশাসন।

No comments